বিকাশ সম্পর্কে

বিকাশ লিমিটেড (বিকাশ) একটি ব্যাংক-লেড মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রোভাইডার যা সেন্ট্রাল ব্যাংক (বাংলাদেশ ব্যাংক) কর্তৃক লাইসেন্স এবং অনুমোদন প্রাপ্ত হয়ে ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেডের একটি সাবসিডিয়ারি কোম্পানী হিসেবে পরিচালিত হচ্ছে। বিকাশ বাংলাদেশের ব্যাংকিং সুবিধার আওতাধীন ও বহির্ভূত উভয় শ্রেণীর মানুষকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পেমেন্ট এবং অর্থ স্থানান্তর পরিষেবাগুলি নিরাপদ, সুবিধাজনক এবং সহজ উপায় সরবরাহ করে। বিকাশ ২০১০ সালে, ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড, বাংলাদেশ এবং মানি ইন মোশন এলএলসি, ইউএসএ এর একটি যৌথ উদ্যোগ হিসেবে যাত্রা শুরু করে। ২০১৩ সালের এপ্রিল মাস্‌, ওয়ার্ল্ড ব্যাংক গ্রুপের সদস্য ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স কর্পোরেশন (আইএফসি) বিকাশ-এর ইকুইটি পার্টনার এবং ২০১৪ সালের এপ্রিল মাসে, বিল এন্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন ইনভেস্টর হিসেবে বিকাশ-এ যোগদান করে। ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে, চীনের আলিবাবা গ্রুপের অ্যাফিলিয়েট, অ্যান্ট ফিনান্সিয়াল (আলী-পে) বিকাশ-এ বিনিয়োগ করেছে। বিকাশ-এর মূল উদ্দ্যেশ্য হলো বাংলাদেশের মানুষের জন্যে ব্যাপক পরিসরে আর্থিক সেবা নিশ্চিত করা। বিশেষ করে স্বল্প আয়ের জনগোষ্ঠীকে সুবিধাজনক, সাশ্রয়ী, এবং নির্ভরযোগ্য সেবা প্রদানের মাধ্যমে অর্থনৈতিক কার্যকলাপের সাথে সম্পৃক্ত করা।

বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার ৭০ ভাগেরও বেশি গ্রামে বাস করে, যেখান থেকে প্রাতিষ্ঠানিক আর্থিক সেবা পাওয়া কষ্টসাধ্য। অথচ প্রিয়জনের পাঠানো টাকা পাওয়া, বা আর্থিক সেবা ব্যবহার করে নিজেদের অবস্থার উন্নয়নের জন্যে গ্রামের এই মানুষগুলোরই এধরনের সেবার প্রয়োজন সবচেয়ে বেশি। বর্তমানে ১৫ ভাগেরও কম বাংলাদেশি প্রথাগত ব্যাংকিং পদ্ধতির আওতায় আছে, যেখানে ৬৮ ভাগেরও বেশি মানুষের কাছে মোবাইল ফোন রয়েছে। এই মোবাইল ফোনগুলো শুধু কথা বলার উপকরণই নয়, বরং আরও অনেক প্রয়োজনীয় এবং পরিশীলিত কার্যক্রমও পরিচালনা করতে সক্ষম। বিকাশ প্রাথমিকভাবে এই মোবাইল ডিভাইসগুলো এবং পুরো বাংলাদেশে বিস্তৃত টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্কের সদ্ব্যবহার করে একটি নিরাপদ প্লাটফর্মের মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রান্তিক ও বঞ্চিত মানুষের কাছে আর্থিক সেবাসমূহ পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে। বর্তমানে, বিকাশ ৩০ মিলিয়ন নিবন্ধিত অ্যাকাউন্ট সহ বাংলাদেশের শহুরে ও গ্রামাঞ্চলে ১,৮০,০০০ এরও বেশি এজেন্ট নেটওয়ার্ক পরিচালনা করছে। ২০১৭ সালে, সামাজিক সমস্যা সমাধানের ভিত্তিতে পরিবর্তন ঘটানো সেরা ৫০ কোম্পানি নিয়ে ফরচুন ম্যাগাজিনের ‘চেইঞ্জ দ্য ওয়াল্ড ২০১৭’ শীর্ষক বার্ষিক ওই তালিকায় বিকাশ ২৩ তম কোম্পানি হিসেবে স্থান পেয়েছে।