মোবাইল ফোনে আর্থিক সেবা দিতে যাত্রা শুরু করলো বিকাশঃ

জুলাই ২১, ২০১১ ঢাকা, বাংলাদেশ

২০১১ সালের ২১শে জুলাই, বাংলাদেশে এই প্রথম মোবাইল আর্থিক সেবা প্রদানের লক্ষ্যে ব্র্যাক ব্যাংকের সহযোগী প্রতিষ্ঠান বিকাশ লিমিটেড যাত্রা শুরু করেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আতিউর রহমান বিকাশ এর কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। গভর্নর এই উদ্যোগটিকে শুধু বাংলাদেশের উন্নতির জন্য  একটি মাইলস্টোনই না, বরং ব্যাংকিং এবং টেলিকম ইন্ডাস্ট্রিতেও একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশীদারি পদক্ষেপ হিসেবে উল্লেখ করেছেন। বিকাশ বাংলাদেশের ব্যাংকিং আওতাভুক্ত এবং ব্যাংকিং আওতার বাইরের জনগণকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আর্থিক সেবা প্রদান করার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত। বিকাশ এর মূল আদর্শ অতি সাধারন - অর্থ সংরক্ষণের একটি নিরাপদ ও সুবিধাজনক স্থান; এবং প্যামেন্ট ও অর্থ স্থানান্তরের একটি নিরাপদ ও সহজ উপায়।

বিকাশ মোবাইল একাউন্ট একটি ভিসা প্রযুক্তি প্লাটফর্ম, যা সবচাইতে নিরাপদ লেনদেন নিশ্চিতের লক্ষ্যে  কাঠামোগতভাবে সম্পূর্ণ প্রস্তুত। এটি হল গ্রাহকের একাউন্ট, যা অর্থ জমা এবং জমাকৃত অর্থ  উত্তোলন অথবা বিভিন্ন সেবার উদ্দ্যেশে ব্যাবহার করা যাবে।  গ্রাহকগন তাদের বিকাশ একাউন্টে বেতন, ঋণ, অভ্যন্তরীণ অর্থ এবং অন্যান্য  আয়ের খাত থেকে ইলেকট্রনিক অর্থ গ্রহনে সক্ষম হবেন এবং অতঃপর বিকাশ এর নির্ধারিত কয়েকশ ক্যাশ আউট এজেন্টের যেকোনো একটি থেকে ইলেকট্রনিক অর্থ ক্যাশ আউট করতে পারবেন।

ফেব্রুয়ারী ২০১১, রবি গ্রাহকদের বিকাশের সেবা প্রদান এবং বিকাশ সেবার প্রসার আরও প্রশস্ত করার লক্ষ্যে মোবাইল অপারেটর রবি এজিয়াটা লিমিটেড এর সাথে অংশীদারি চুক্তি স্বাক্ষর করে বিকাশ।  বিকাশের অন্য একটি অংশীদার হল ব্র্যাক, যার স্থানীয় পর্যায়ের ব্যাপক নেটওয়ার্ক  বিকাশের সেবাসমূহ সুবিধাভোগীদের আরও সন্নিকটে নিয়ে আসছে। ব্র্যাক এর প্রতিষ্ঠাতা এবং সভাপতি স্যার ফজলে হাসান আবেদ বলেন, “লক্ষ্য লক্ষ্য ব্যাংকিং সেবার বাইরের মোবাইল ফোন ব্যাবহারকারী জনগোষ্ঠীকে ব্যাংক একাউন্ট খোলার সুবর্ণ সুযোগ করে দিচ্ছে বিকাশ, যার মাধ্যমে তারা নিরাপদে টাকা জমা, উত্তোলন, পাঠানো, এবং প্যামেন্ট করতে পারবেন।“

বিকাশ ইতিমধ্যে ৫০০ এজেন্ট নির্ধারণ করেছে এবং প্রতিমাসে এর নেটওয়ার্কে একশরও বেশী নতুন এজেন্ট যোগ করে চলেছে। বিকাশ স্থানীয় সরকার বিভাগ এবং এ টু আই এর সাথে একটি এমওইউ স্বাক্ষর করেছে যার মাধ্যমে  তাদের ৪,৫০১ টি ইউনিয়ন ইনফরমেশন ও সার্ভিস সেন্টার ব্যাবহার করে মাঠ পর্যায়ে বিকাশ এর আর্থিক সেবাসমুহকে সহজলভ্য করা সম্ভব। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ডঃ আতিউর রহমান বলেন, “ বিকাশ এর মাধ্যমে মানুষ বিভিন্ন উদ্দেশ্যে টাকা জমা, উত্তোলন ,এবং ব্যাবহার করতে পারবেন। এটি দেশের গ্রামাঞ্চলে টাকার প্রবাহ আরও বৃদ্ধি করবে। বিকাশ মানুষের মধ্যে সঞ্চয়ের প্রবণতা বাড়াবে। আমি দেশের সব মোবাইল অপারেটরের গ্রাহকদের জন্য বিকাশ এর সেবাসমুহ সহজলভ্য করার লক্ষ্যে মোবাইল কোম্পানিগুলোর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে নিয়ন্ত্রকদের অনুরোধ করেছি। আমি আশা করি সব মোবাইল অপারেটর তাদের নিজেদের স্বার্থেই এগিয়ে আসবে এবং যোগদান করবে। আমি বিকাশ, ব্র্যাক ব্যাংক, এবং রবি’কে একত্রিত হয়ে এই উদ্যোগটি সফল করার জন্য ধন্যবাদ এবং অভিনন্দন জানাই।“

“বাজারের নেতৃস্থানীয় ব্যাবসায় প্রতিষ্ঠানগুলোর সমর্থন সাথে নিয়ে বাংলাদেশের বেশীরভাগ মানুষের গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজন মেটানোর উদ্যেশ্যে সেবা প্রদানের লক্ষ্যে কাজ করছে বিকাশ,” বলেন জনাব কামাল কাদির, বিকাশ এর সিইও। “আমরা মানুষের, ব্যাবসায় এবং গোষ্ঠীগত চাহিদা মেটাতে ক্রমাগত বিবর্ধনে নিয়োজিত থাকবো,” বক্তব্যে অগ্রসর হন জনাব কাদির।    

বিকাশ ব্র্যাক ব্যাংকের বর্ধিতাংশ এবং সম্পূর্ণ মোবাইল ফোনভিত্তিক একটি পেমেন্ট সুইচ, যা নিজস্ব সুযোগ-সুবিধা কাজে লাগিয়ে একটি পরিপক্ব অর্থনীতির উপর আনুষ্ঠানিক অর্থনৈতিক সেবার বিস্তার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে একটি সক্রিয় ব্যাবসায় পরিকল্পনা প্রতিষ্ঠা করেছে। দেশের মোট জনসংখ্যার ৮৩ ভাগেরই দিনপ্রতি আয় ২ ডলারের নিচে, যেকারনে বিকাশ দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে সহায়ক ভুমিকা পালন করতে সক্ষম হবে।“ বলেন বিকাশ এবং ব্র্যাক ব্যাংকের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ এ (রুমি) আলী।

রবি এজিয়াটা’র ব্যাবস্থাপনা পরিচালক এবং প্রধান নির্বাহী মাইকেল কুনার উল্ল্যেখ করেন, প্রথমবারের মত  সম্পূর্ণভাবে নিয়োজিত একটি মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান একটি মোবাইল অপারেটর কোম্পানীর সহযোগী হওয়ার ফলে গ্রাহকগণ এখন  অত্যাধুনিক প্যামেন্ট  সেবা আশা করবেন।
“বিকাশ মানুষের বর্তমান লেনদেনের পদ্ধতিকে বদলে দিবে। গ্রাহকদের ব্যাংকে আসার প্রয়োজন হবে না, বরং ব্যাংকই তার কাছে আসবে। বিকাশ এর মেন্যু-চালিত পদ্ধতি খুবই সহজে ব্যাবহারসাধ্য হবে। গ্রাহকগণ সাধারন মানের হ্যান্ডসেটের মাধ্যমেও ব্যাংকিং করতে পারবেন।“ বলেন ব্র্যাক ব্যাংকের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক এবং প্রধান নির্বাহী সৈয়দ মাহবুবুর রহমান।