রোড এক্সিডেন্ট

  • শুক্রবারে অনেক টাকা খরচ করে মনিরামপুরে গিয়ে আমার মাকে টাকা দিয়ে আসতে হয়, বুঝলেন স্যার।• •ওই দেখে চালাতে পারিস না? •৫০০ টাকা পাঠাতে যদি ১০০ টাকা খরচ হয়, তাহলে নিজের কিছু থাকে বলেন? কেন? টাকা পাঠাতে অতদূর যেতে হবে কেন...?• মোবাইল ফোন নেই?
  • ঐ ভ্যানকে ডাক দে। হাসপাতালে নিতে হবে।
  • জি, আমিই ওর মামা। ও কত নম্বর ওয়ার্ডে আছে, ভাই? না না, টেনশন নিবেন না। •রোগীকে এক্ষুনি ঢাকায় হাসপাতালে নিতে হবে না হলে পা আর বাঁচানো যাবেনা। তারাতারি যান।• আচ্ছা আপা, আমার ভাগ্নের চিকিৎসার জন্যে ঢাকায় কত টাকা লাগতে পারে? •ধরেন ১০-১২ হাজারের মতো।
  • হ্যালো হান্নান শোন। ভাগ্নের চিকিৎসার জন্য আজকেই ঢাকায় যেতে হবে। অনেক টাকা লাগবে। তুই এক কাজ কর। সিদ্দিকের কাছ থেকে আমার চালানের বাকি ১৫ হাজার টাকা নিয়ে শিগগীরি বাস স্ট্যান্ডে চলে আয়। সাবধানে যাবেন ভাই।• চিকিৎসার জন্য টাকা পয়সা লাগলে আমাকে জানাবেন। •স্যার, আপনি শুধু শুধু টেনসন নিবেন না। টাকা রেডি আছে। আমার ভাগ্নের কারনে আপনার অনেক ক্ষতি হয়ে গেল। মাফ করে দিবেন স্যার।
  • ওস্তাদ সিদ্দিক মিয়াঁ পাঁচের বেশি দিতে পারে নাই। আপনি রাতের গাড়িতে যান, আমি আরেকটু চেষ্টা করে দেখি।• ডাক্তার বলেছে দেরি করলে আর পা বাঁচানো যাবে না। আমি আল্লাহ ভরসা করে রওনা দিলাম। তোরা টেনশন নিস না।• ঢাকায় পৌঁছেই ফোন দিবেন ওস্তাদ। আমি টাকার ব্যবস্থা করেই রওনা দিব।
  • মামা পায়ে খুব ব্যাথা করছে। ঢাকায় পৌছাতে কতক্ষন লাগবে? •বাস খুব জোরে চলার পরেও নাকি ৫ ঘণ্টা লাগে। টেনশন করিস না। ঢাকায় পৌঁছাইলেই সব ঠিক হয়ে যাবে।
  • অই, এত তাড়াহুড়ার কি আছে? •আস্তে... বড় ভাইয়েরা টেনশন নিবেন না, টেনশন নিবেন না। ড্রাইভার সাহেব একটু দেখে চালান। হায়াত ময়ুতের দায়িত্ব আপনি নিবেন কেন? যাক, ঢাকায় তো আসলাম। এখন ভালোই- ভালোই তর চিকিৎসাটা হইলেই হয়।
  • আচ্ছা বড় ভাই, পা ভাঙ্গা রোগীকে কোন বিল্ডিং –এ নিতে হবে? বাড়ি কোথায় আপনাদের? সাথে কি টাকা পয়সা আছে?• জি,টাকা কি চিকিৎসা শুরু হওয়ার আগেই লাগবে? •মামা চলো ভিতরে গিয়ে জিজ্ঞাসা করি।• ফ্রাকচার? ১০৩ নম্বর রুমে চলে যান।
  • ডাক্তার সাহেব,ওর পা ঠিক হবে তো?ও রিক্সা চালিয়ে-চালিয়ে ওর মাকে টাকা পাঠায় আর দুই বেলা খায়। ওই পা ঠিক না হলে তো... • দেখছি...আগে এক্সরে করে নিয়ে আসেন। •বড় ভাই, এক্সরের জন্যে তো ১৫০ টাকা দিলাম। এরপরে কি আর কোথাও টাকা লাগতে পারে?• সেটা এক্সরে না করে আগেই কিভাবে বুঝব।
  • (এক্সরে রিপোর্ট দেখার পর) ৩ ঘন্টার মধ্যে অপারেশন করতে হবে।১০ হাজার টাকা লাগবে।• স্যার, আপনি কোনো টেনশন নিবেন না। অপারেশন শুরু করে দেন। আমার লোক এখনই টাকা নিয়ে রওনা দেবে।• না ভাই,অপারেশন শুরুর আগেই টাকা দিতে হবে। ৩ ঘন্টার মধ্যে অপারেশন না করলে কিন্তু পা বাঁচানো যাবেনা।
  • হ্যালো হান্নান,টাকা পাস নাই? তুই স্যার-এর কাছে গিয়ে দেখতো কিছু ধার পাওয়া যায় কি’না। আরও ১০ হাজার না হলে অপারেশন হবে না। ঠিকই বলেছিস। টাকা জোগাড় হলেও সেটা এত তাড়াতাড়ি তুই ঢাকাতে কিভাবে পাঠাবি? আচ্ছা তুই আগে স্যার এর কাছে যা,তারপর দেখা যাবে। আপা দেশ থেকে টাকা আসতে দেরি হবে। কি করা যায় বলেন তো? ... • টাকা না দিলে তো আমি কিছু করতে পারব না।
  • হ্যালো কি? স্যার কি করতে বলছেন? বিকাশ? সেটা কি? •ওস্তাদ,স্যার আপনাকে ফোন-এ টাকাটা বিকাশ করে দিবে,তারপর ঢাকায় একটা বিকাশ-এর দোকানে গেলে তারা আপনাকে ক্যাশ দিয়ে দিবে। একটু স্যার-এর সাথে কথা বলেন।
  • শোনেন,আপনার সাথে ভোটার আইডি আছে না?... হ্যাঁ ঠিক আছে। তাহলে চট করে ২ কপি ফটো তুলে ফেলেন। তারপর দেখেন হাসপাতালের কাছেই লাল পাখির চিহ্ন দেয়া বিকাশ-এর এজেন্ট কোথায় আছে। সেখানে গিয়ে একটা একাউন্ট খুলে আমাকে একটা কল দেন। আমি মুহূর্তেই মধ্যেই টাকা পাঠিয়ে দিব। •বলেন কি স্যার। আমাদের দেশতো তা’হলে অনেক এগিয়ে গেছে। শুধু শুধু সেই দুপুর থেকে সবাই আমাকে খালি টেনশন দিয়ে যাচ্ছে।
  • জি স্যার। টাকাটা আমি হাতে পেয়ে গেছি। অপারেশন শুরু হয়ে গেলেই আপনাকে একটা ফোন দিচ্ছি। আপনি আমার ভাগ্নের অনেক উপকার করলেন। ওর পা ঠিক না হলে কি যে উপায় হতো...বুঝলি? আমি এখন থেকে আমার কাস্টমারদের বিকাশ দিয়ে টাকা দিতে বলবো। অনেক সুবিধা। জাল টাকার টেনশন নেই, টাকা চুরি হওয়ার টেনশন নেই, টাকা ছিনতাই হওয়ার... আর কোনো টেনশনই নেই।
  • (অনেক দিন পর) তোর মামা নাকি আগামী বছর থেকে বিকাশ-এ টাকা না দিলে মালই বিক্রি করবেন না, ভালই তো বিকাশ-এর ভক্ত।• জি স্যার, হবে না? আমিও তো এখন আমার মাকে যখন তখন টাকা পাঠাতে পারি। একদম সময় লাগেনা,খরচও কম।• আপনার কাছেইতো শিখলাম। হে হে,দেখেশুনে চালারে। জীবন না বাঁচলে কিন্তু আর রোজগারও হবে না। আর তোর মাকেও টাকা পাঠানো হবে না।