টিভি বিজ্ঞাপন

গ্রামের বৃদ্ধ লোক রহমতের হঠাৎই জরুরী প্রয়োজন হয়ে পরে গ্রাম থেকে শহরে ছেলের কাছে টাকা পাঠানোর, কারন তার ছেলে শফিক শহরে যাবার সময় টাকা বাড়িতেই ফেলে গেছে...
যুক্তরাজ্য থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে আগ্রহীরা এখন ব্র্যাক সাজান ও এর সহযোগী আউটলেটের মাধ্যমে সরাসরি বাংলাদেশে বিকাশ একাউন্টে টাকা পাঠাতে পারবেন।
গার্মেন্টসকর্মী সখিনা বাড়িতে পরিবারের কাছে টাকা পাঠানোর জন্য নিয়মিত বিকাশ ব্যবহার করে। সখিনা বলছে কিভাবে বিকাশ তার জীবনকে আরও সহজ করে দিয়েছে এবং কিভাবে এটি তার চারপাশের মানুষের জীবনেও পরিবর্তন নিয়ে আসছে।
বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র রনি ঢাকায় এসে পড়াশুনা করছে। তার জরুরীভিত্তিতে টিউশন ফি জমা দিতে হবে বলে সে তার বাবাকে বিকাশ করতে বলে...
ড্রাইভার মিলনকে গাড়ির মালিক বেতন পাঠায় বিকাশ করে। মিলন আসে বিকাশ এজেন্টের কাছে টাকা তুলতে। এজেন্ট জানতে চায় সে কত টাকা ক্যাশ আউট করবে...
গার্মেন্টসকর্মী সখিনা নিয়মিত গ্রামের বাড়িতে বাবা-মায়ের কাছে টাকা পাঠায়। হাতে-হাতে পাঠানোই ছিল তার টাকা পাঠানোর একমাত্র উপায়, যা কখনই সুবিধাজনক বা সাশ্রয়ী ছিল না। এখন তার সম্প্রতি আবিষ্কৃত বিকাশ দিচ্ছে তার এই সমস্যার সবচেয়ে সহজ ও নিরাপদ সমাধান-“বাড়িতে টাকা পাঠানো এত সহজ ছিল না কখনই”।
গৃহিণী নিনার হঠাৎ কিছু জরুরী সামগ্রী কেনার প্রয়োজন পরেছে অথচ তার সাথে যথেষ্ট নগদ টাকা নেই, তাছারা তার হাতে সময়ও কম। কাছের একটি সুপারষ্টোরে যেতে যেতে...
এই বিজ্ঞাপনচিত্রে আমরা একজন মা ও তাঁর ছেলের মধ্যে একটি মিষ্টি সম্পর্ক দেখতে পাই। গল্পটি শুরু হয় রাত ১ টায়, সুমনের পরীক্ষার ঠিক আগের রাত। সুমন তার মায়ের ফোনটা নেয়ার জন্যে তাকে ঘুম থেকে উঠায়। আগামীকাল পরীক্ষার জন্যে বড় ভাইয়ের কাছে জরুরী কিছু অংকের সমাধান চায় সে। মায়ের ফোন নিয়ে কথা বলতে বলতে অংকের সমাধান পাওয়ার আগেই তার মোবাইল ব্যালেন্স ফুরিয়ে যাওয়ার কারণে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এত রাতে কিভাবে মোবাইল ব্যালেন্স রিচার্জ করবে এই ভেবে সুমনের মাথায় বাজ পড়ে। ছেলে সুমনকে অবাক করে দিয়ে প্রগতিশীল মা ফোনটি চেয়ে নিয়ে নিজের বিকাশ ওয়ালেট থেকে মোবাইল ব্যালেন্স রিচার্জ করে দেয়। মা ও ছেলের খুশির হাসিতে আলোকিত হয় সে রাত।
তরুণ এক্সিকিউটিভ ইশতিয়াক ট্রেন এ ভ্রমণ করছিল। হঠাৎই তার মা কে জরুরীভিত্তিতে কিছু টাকা পাঠানোর প্রয়োজন পড়ে। তার সাথে টাকা আছে কিন্তু ট্রেন থেকে কিভাবে বিকাশ করবে এটা বুঝতে না পেরে ইশতিয়াক খুব অসহায় বোধ করে।
নববর্ষ আসে নতুন স্বপ্ন নিয়ে, নতুন আশা নিয়ে। পেছনের দিনের ব্যর্থতা, জীর্ণতাকে ভুলে হাসিমুখে আমাদের শুরু করতে হবে নতুন এক যাত্রা। এই শুভযাত্রায় বিকাশ থাকতে চায় আপনার সাথে, হাসি ফোঁটাতে চায় আপনার মুখে। সুদিনের এই বিকাশে আপনাকে জানাই শুভ নববর্ষ।

Pages