২০টি ব্যান্ড দল নিয়ে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের “স্বাধীনতা সঙ্গীত উৎসব

ফেব্রুয়ারি ০৫, ২০২০ ঢাকা

আগামী ৬ থেকে ৮ ফেব্রুয়ারি মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের স্থায়ী তহবিল গঠনের উদ্দেশে ২০ টি ব্যান্ড-সঙ্গীত দলকে নিয়ে আয়োজিত হবে ‘স্বাধীনতা সঙ্গীত উৎসব’। ‘মাকসুদ ও ঢাকা’-র উদ্যোগে তিন দিনব্যাপী আয়োজিত এই অনুষ্ঠানের সহযোগিতায় থাকবে বিকাশ ।

‘মুজিব শতবর্ষ’ উদযাপনের অংশ হিসেবে আয়োজিত বৃহৎ এই স্বাধীনতা সঙ্গীত উৎসব থেকে অর্জিত অর্থ জমা হবে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের তহবিলে।

স্বাধীনতা সঙ্গীত উৎসব-এর মূল উদ্দেশ্য নতুন প্রজন্মের সঙ্গে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের নিবিড় যোগাযোগ গড়ে তোলার মাধ্যমে গৌরবময় মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে তাদের অবগত করা।  গানে গানে সেই প্রচেষ্টাই করবেন দেশবরেণ্য ও তরুণ প্রজন্মের প্রিয় সব ব্যান্ড-সঙ্গীত শিল্পীরা। এই বিশাল উৎসবে সঙ্গীত পরিবেশন করবেন মাকসুদ ও ঢাকা, বাংলা ফাইভ ব্যান্ড, অবন্তী সিঁথি, নোভা, মাদল, গানকবি, ওয়ারফেইজ, আভাস, রেনেসাঁ, নেমেসিস, মেঘদল, মাটি, অবস্কিউর, স্যাক্রামেন্ট, গাছ, চিৎকার, সভ্যতা, সরল, বাউল এক্সপ্রেস এবং সহজিয়া।

আগামী ৬, ৭ ও ৮ ফেব্রুয়ারি প্রতিদিন দুপুর দুইটা থেকে বিকেল সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত উন্মুক্ত মঞ্চে এবং সন্ধ্যা সাতটা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত মূল মিলনায়তনে সঙ্গীত পরিবেশিত হবে। উন্মুক্ত মঞ্চের প্রবেশ মূল্য ৩০০ টাকা ও মূল মিলনায়তনে প্রবেশ মূল্য ১০০০ টাকা।

বিকাশ অ্যাপ এর সাজেশন বক্সে  ‘ফ্রিডম মিউজিক ফেস্ট’ লোগোতে ক্লিক করে খুব সহজেই টিকিট কেনা যাবে। ৩০০ টাকা এবং ১হাজার টাকা মূল্যের টিকিট থাকবে উৎসবের জন্য। https://www.facebook.com/lwmfreedommusicfest/ ফেসবুক পেজ থেকে কনর্সাট এর সময়সূচি এবং শিল্পীর বিস্তারিত তালিকা পাওয়া যাবে। মুক্তিযুক্ত জাদুঘরে স্থাপিত বিকাশের বুথে অগ্রীম টিকিট পাওয়া যাচ্ছে। টিকিটের পর্যাপ্ততা সাপেক্ষে উৎসবের দিনেও টিকিট সংগ্রহ করা যাবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি মফিদুল হক, মাকসুদ ও ঢাকা ব্যান্ড এর মাকসুদ,বামবা সাধারণ সম্পাদক শেখ মনিরুল আলম টিপু এবং বিকাশের চিফ মার্কেটিং অফিসার মীর নওবত আলী সহ  ব্যান্ডদল গুলোর সদস্যবৃন্দ এবং উভয় প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাগন।

উল্লেখ্য মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের তহবিলে সারা বছরেই বিকাশের মাধ্যমে খুব সহজেই অনুদান দেয়া যায়। https://www.liberationwarmuseumbd.org/bkash/application/donation  লিংকে ক্লিক করেই  যেকেউ ১০০, ৫০০, ১০০০ কিংবা ১০,০০০ টাকা সহজেই মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর তহবিলে দান করতে পারেন।

মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরের তহবিল সংগ্রহ এবং টিকিট বিক্রি কর্মকান্ডে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে সেবা দিচ্ছে বিকাশ।

উল্লেখ্য, একাত্তরের স্মৃতি বিজড়িত লক্ষাধিক স্মারক, দলিল ও আলোকচিত্র মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে সংরক্ষিত আছে। অসংখ্য মানুষের নিরন্তর প্রচেষ্টায় গড়ে ওঠা এই জাদুঘরের স্বারক সংরক্ষণ, উপস্থাপন ও বিকাশকে আরও ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যেই আয়োজিত হতে চলেছে স্বাধীনতা সঙ্গীত উৎসব।