ঘরে থাকার এই সময়ে বিকাশ রিচার্জে নিশ্চিত হচ্ছে নিরবিচ্ছিন্ন মোবাইল সেবা

মে ০৩, ২০২০ ঢাকা

বাসা থেকে অফিসের কাজ, অনলাইনে সন্তানের স্কুল, পরিজনের খোঁজখবর রাখা, তথ্য, বিনোদন, সামাজিক যোগাযোগ, অনলাইনেই বাজার-সদাই, মোবাইল ব্যাংকিং দিয়ে টাকা পাঠানো, কেনাকাটার পেমেন্ট, ইউটিলিটি বিল দেয়া, টেলিমেডিসিন এর মাধ্যমে ডাক্তারের পরামর্শ এরকম ছোট বড় অসংখ্য প্রয়োজনে তাওহিদুল ইসলাম পরিবারের মোবাইল ডাটার ব্যবহার প্রায় দ্বিগুন বেড়েছে। কভিড-১৯ প্রতিরোধে সারাদেশে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে ঘরে থাকার কারণে ইসলাম পরিবারের মত অনেক মোবাইল গ্রাহকের মোবাইল ব্যবহার কয়েকগুন বেড়েছে। চারদেয়ালে বন্দি থাকার সময়ে জরুরী কাজ গুলো করতে এবং স্বাভাবিক যোগাযোগ রক্ষা করতে মোবাইলই নির্ভরতার অন্যতম স্থান হয়ে উঠেছে। 
পরিসংখ্যানেও একই ধরনের তথ্য মিলছে। অ্যাসোসিয়েশন অব মোবাইল টেলিকম অপারেটর (এমটব) এর তথ্য মতে কোভিড এর এই সময়ে মোবাইল ডাটার ব্যবহারের হার প্রায় ১৫ থেকে ২০ শতাংশ বেড়েছে। আর সেই সাথে মোবাইল এর এই নিরবিচ্ছিন্ন ব্যবহার নিশ্চিত করতে  জরুরী হয়ে পড়েছে ঘরে বসে মোবাইল রিচার্জের সুযোগ। গ্রাহকরা তাই বিকাশের মত মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস ব্যবহার করে যে কোন সময় দেশের যে কোন স্থান থেকে অনায়েসে নিজের এবং প্রিয়জনের মোবাইল রিচার্জের জরুরী কাজটি সারছেন।  
বিকাশ সূত্রে জানা যায় এ বছরের শুরুতে জানুয়ারি মাসে তিন কোটির বেশি গ্রাহকের মোবাইল রিচার্জ সেবা নিশ্চিত হত বিকাশের মাধ্যমে। এপ্রিল মাসে এসে প্রায় সাড়ে চার কোটি মোবাইল গ্রাহকের রির্চাজ হয়েছে বিকাশের মাধ্যমে। ঘরে থাকার এই সময়ে বিকাশ মোবাইল রিচার্জ ব্যবহার করে মোবাইল সেবা নিরবিচ্ছিন্ন  রাখার হার ৪০ শতাংশেরও বেশি বেড়েছে। 
কথা বলার জন্য মোবাইলের টক-টাইম হোক বা ইন্টারনেট প্যাকেজ বিকাশ অ্যাপ থেকেই মোবাইল সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান গ্রামীনফোন, রবি, বাংলালিংক, এয়ারটেল, টেলিটকের এর এয়ারটাইম/প্যাকেজ কেনার সুযোগ পান ব্যবহারকারীরা। কখনো কখনো থাকে ছাড় সহ বিশেষ অফার। ফলে নিজের বিকাশ একাউন্ট থেকেই নিজের বা অন্যের প্রয়োজন অনুসারে ছোট বা বড় প্যাকেজ কিনে ব্যবহার করার সুবিধা পান গ্রাহক।
মোবাইল রিচার্জ সহ অন্যান্য জরুরী আর্থিক লেনদেনের জন্য বিকাশ গ্রাহকরা সারাদেশের বিকাশ এজেন্টের কাছে ক্যাশইন করার পাশাপাশি এখন যে কোন ভিসা অথবা মাস্টারকার্ড থেকে মুহুর্তেই নিজের অথবা প্রিয়জনের বিকাশ একাউন্টে টাকা নিয়ে আসতে পারেন। তাছাড়া ১২টি বেসরকারি ব্যাংকের অনলাইন ব্যাংকিং বা অ্যাপ থেকেও বিকাশ একাউন্টে টাকা আনার সেবা নিতে পারেন গ্রাহক। ফলে কোথাও না গিয়ে অনায়েসে বিকাশ একাউন্ট টাকা আনার সেবা নিচ্ছেন সারাদেশের গ্রাহক।
শহর-গ্রাম এমন কি প্রত্যন্ত অ লেও আর্থ-সামাজিক অবস্থার পরিবর্তনে মোবাইল এর ব্যবহার আর্শীবাদ হয়ে কাজ করছে। আর করোনা পরিস্থিতির মত এই বিশেষ সময়ে সেই প্রয়োজনীয়তা আরো বেশি স্পষ্ট হয়েছে এবং মোবাইল ভিত্তিক আর্থিক সেবাও এসময়ে আর্থিক লেনদেনকে  সচল স্বাভাবিক রাখতে জরুরী ভূমিকা রাখছে।