ভিসা ক্রেডিট কার্ড বিল বিকাশ করুন যেকোনো সময়. ঘরে বসেই

এখন ঘরে বসে বিকাশ অ্যাপ থেকেই আপনার ভিসা ক্রেডিট কার্ডের বিল পরিশোধ করতে পারবেন, নিজের সুবিধামত সময়ে। বাংলাদেশের যেকোনো কমার্শিয়াল ব্যাংক থেকে ইস্যুকৃত ভিসা ক্রেডিট কার্ডের বিল বিকাশ অ্যাপ থেকে পরিশোধ করা যাবে।

সার্ভিস চার্জ:

  • লেনদেনের পরিমাণের উপর ১% চার্জ প্রযোজ্য

লিমিট:

  • ক্রেডিট কার্ডের বিল পেমেন্টে কোনো লিমিট নেই।

সার্ভিসের বিস্তারিত:

  • এই সার্ভিস ব্যবহার করে শুধুমাত্র ভিসা ক্রেডিট কার্ডের বিল প্রদান করা যাবে
  • শুধুমাত্র সক্রিয় বিকাশ একাউন্ট এবং পর্যাপ্ত ব্যালেন্স থাকলেই এই সার্ভিসটি পাওয়া যাবে
  • শুধুমাত্র বাংলাদেশি টাকায় ক্রেডিট কার্ডের বিল পরিশোধ করা যাবে যা ক্রেডিট কার্ডের লোকাল (বাংলাদেশ) লিমিটের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে
  • ক্রেডিট কার্ডের বিল পেমেন্টে কোনো লিমিট নেই। তবে, সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের পেমেন্ট সংক্রান্ত নিয়মাবলী প্রযোজ্য হবে
  • ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমে বিলটি পরিশোধের জন্য পাঠানো হবে। বিল প্রদান করার পর ৩ কর্মদিবসের মধ্যে পেমেন্ট আপডেট হবে
  • যদি বিল পরিশোধ ব্যর্থ হয়, লেনদেনের ২৪ ঘন্টার মধ্যে ডুয়েল ব্যালেন্স সংক্রান্ত জটিলতা সমাধান করা হবে
  • যদি গ্রাহক শেষ মুহূর্তে বিকাশ এর মাধ্যমে ক্রেডিট কার্ড বিল প্রদান করার ফলে ব্যাংক কর্তৃক লেট ফি চার্জ করা হয়, তাহলে এই সংক্রান্ত জটিলতা সমাধানে গ্রাহককে কার্ড ইস্যুকারী ব্যাংকে যোগাযোগ করতে হবে
  • গ্রাহক বিকাশ অ্যাপ থেকে ক্রেডিট কার্ড বিল চেক করতে পারবেন না। বিকাশ সার্ভিস ব্যবহার করে শুধুমাত্র ভিসা ক্রেডিট কার্ড বিল পেমেন্ট করা যাবে
  • যদি ভুল কার্ড নাম্বারে ভুলবশত পেমেন্ট হয়ে যায়, তাহলে গ্রাহককে তার ক্রেডিট কার্ড ইস্যুকারী ব্যাংকে যোগাযোগ করতে হবে
  • যদি পেমেন্টের সময় টাকার পরিমাণ প্রদানে ভুল হয় (উদা: পেমেন্ট করতে চেয়েছিলেন ৫০০, কিন্তু করেছেন ৫০০০) তাহলে গ্রাহক তার কার্ড ইস্যুকারী ব্যাংকে যোগাযোগ করতে হবে
  • বিকাশ গ্রাহক সার্ভিস প্রতিনিধি টিকেটিং সিস্টেমে, ইমেইলে বা কাগজে (যদি প্রয়োজন হয়) ক্রেডিট কার্ড নাম্বারের শেষ ৪ ডিজিট নোট করে রাখতে পারেন, তবে গ্রাহককে এই বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে যে ইচ্ছায়/অনিচ্ছায় কোনো অবস্থাতেই সম্পূর্ণ কার্ড নাম্বার প্রকাশ করা যাবে না
  • একজন গ্রাহক কোনো অবস্থাতেই তার বিকাশ একাউন্টের পিন নাম্বার কারো সাথে শেয়ার করবেন না। গ্রাহক কোনো প্রকার জালিয়াতি/ প্রতারণার শিকার হলে, তার দায়ভার বিকাশ নেবে না। গ্রাহকের বিকাশ একাউন্ট থেকে যেকোনো লেনদেনের দায়ভার পুরোপুরি গ্রাহকের
  • গ্রাহককে অবশ্যই ক্রেডিট কার্ড নাম্বার এবং টাকার পরিমাণ দেওয়ার সময় সাবধান হতে হবে। বিকাশ শুধুমাত্র একটি নিরাপদ লেনদেনের প্ল্যাটফর্ম দিচ্ছে। লেনদেন করতে গিয়ে কোনো ভুল হওয়া কিংবা সার্ভিসের অপব্যবহারের জন্য বিকাশ কর্তৃপক্ষ দায়বদ্ধ থাকবে না